Follow us

বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, আক্রান্ত ও নিহত হচ্ছেন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা

পুলক ঘটক
ঢাকা
2020-06-15
ই-মেইল করুন
মন্তব্য করুন
Share
ঢাকার বনানী গোরস্তানে দাফনের আগে সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। ১৪ জুন ২০২০।
ঢাকার বনানী গোরস্তানে দাফনের আগে সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। ১৪ জুন ২০২০।
[বেনারনিউজ]

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত তিন দিনে আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন বড় নেতার মৃত্যু হয়েছে। সর্বশেষ সোমবার মারা গেছেন সিলেটের সাবেক মেয়র বদরুদ্দিন আহমেদ কামরান।

এর আগে শনিবার মারা গেছেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এবং বর্তমান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ।

মসজিদ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী। নাগরিক সমাজের একাংশের দাবি ছিল, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মসজিদ, মন্দিরসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা। কিন্তু সরকার ধীর ধীরে বেশ কিছু শর্তসাপেক্ষে মসজিদ খুলে দেয়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে সরকারের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের মৃত্যুর খবরে মানুষের মধ্যে বিষণ্নতা ও মানসিক চাপ বাড়ছে বলে মনে করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নাজমা খাতুন।

“এ রকম অবস্থায় মানুষের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে বিশেষভাবে নজর দেয়া দরকার। প্রয়াত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ করোনা মোকাবিলায় জনসম্পৃক্ত হয়ে কাজ করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন। ঘরে থাকলে এবং জনসমাবেশে না গেলে আক্রান্ত হওয়ার ভয় নেই, এই বিষয়টি সাধারণ মানুষকে জানাতে হবে,” বেনারকে বলেন তিনি।

আক্রান্ত ও মৃত্যুর তালিকায় যুক্ত হচ্ছেন মন্ত্রিসভার সদস্য, সাংসদসহ উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তারাও। সবশেষ সরকারের দুজন সচিব করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

প্রতিরক্ষাসচিব আবদুল্লাহ আল মহসিন চৌধুরী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যশিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব মো. আলী নূর ও তাঁর স্ত্রী নাসরীন আক্তারও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এ পর্যন্ত মন্ত্রিসভার সদস্য ও সাংসদদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক, পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর, যশোর-৪ আসনের সাংসদ রণজিত কুমার রায়, নওগাঁ-২ আসনের সাংসদ শহীদুজ্জামান সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সাংসদ এবাদুল করিম, জামালপুর-২ আসনের সাংসদ ফরিদুল হক খান, চট্টগ্রাম-১৬ আসনের সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনের সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহমেদ।

তাঁদের মধ্যে নওগাঁর শহীদুজ্জামান সরকার ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

এর আগে করোনায় মারা গেছেন সাবেক বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আনোয়ারুল কবির, সংরক্ষিত মহিলা (বগুড়া-জয়পুরহাট) আসনের সাবেক সাংসদ কামরুন্নাহার ও সাবেক সাংসদ হাজি মকবুল হোসেন।

এ ছাড়া কয়েকজন সাবেক ও বর্তমান সরকারি কর্মকর্তাও ইতিমাধ্যে করোনাভাইরাসে মারা গেছেন।

আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়াল বাংলাদেশ

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ৯০ হাজার ছাড়িয়েছে। সংক্রমণের দিক থেকে বাংলাদেশ ছাড়িয়ে গেছে করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনকেও।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেবে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৯০ হাজার ৬১৯ জন, যা সংখ্যা বিবেচনায় বৈশ্বিকভাবে বাংলাদেশকে নিয়ে এসেছে ১৮তম অবস্থানে।

যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসেবে, চীনে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪ হাজারের কিছু বেশি।

এ পর্যন্ত তিন লাখ ৩২ হাজারের বেশি আক্রান্ত নিয়ে এশিয়ায় সর্বোচ্চ ও বৈশ্বিকভাবে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ভারত। আর ২১ লাখের বেশি আক্রান্ত নিয়ে বৈশ্বিক তালিকার শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

জন হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাবে, এ পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৭৯ লাখ ৬৩ হাজারের বেশি মানুষ, মারা গেছেন চার লাখ ৩৪ হাজারের বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ জন মারা যাবার পর বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছেন ১২০৯ জনে।

স্বাস্থ্যসেবা না দেওয়া ফৌজদারি অপরাধ

করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যসেবা না পাওয়ার ক্রমবর্ধমান অভিযোগের মাঝে সোমবার এক আদেশে হাইকোর্ট বলেছে, “কোনো হাসপাতাল বা ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে যাওয়া রোগীদের চিকিৎসায় অনীহা প্রকাশ করার কারণে যদি রোগীর মৃত্যু হয় তাহলে তা ফৌজদারি অপরাধ বলে গণ্য হবে।”

“চিকিৎসার ক্ষেত্রে অবহেলার অভিযোগ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত,” বেনারকে জানান অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মুরাদ রেজা।

সমালোচকদের বিরুদ্ধে মামলার হিড়িক

প্রয়াত রাজনৈতিক নেতাদের সমালোচনা করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন স্থানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার ঘটনা ঘটেছে।

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের প্রতি ঘৃণা প্রকাশ করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক সিরাজুম মুনিরাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে প্রয়াত নাসিমের প্রতি কটাক্ষ থাকায় সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাহির চৌধুরীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার কথা বেনারকে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেন।

একই অভিযোগে সাতক্ষীরায় মামলা হয়েছে একজন আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মিছিল করেছেন প্রগতিশীল সমাজকর্মীরা।

বিক্ষোভের অন্যতম সংগঠক মারজিয়া প্রভা বেনারকে জানান, “গত মার্চ মাস থেকে কভিড-১৯ এর এই সময়ে অন্তত ৪১ জন ব্যক্তি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার শিকার হয়েছেন।”

“গত এক সপ্তাহে দেশের বিভিন্ন স্থানে এ রকম অন্তত ৯টি মামলা হয়েছে,” জানিয়ে তিনি বলেন, “এই কয়েক দিনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৬ জনকে।”

যারা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার হয়েছেন তাঁদের সবার মুক্তি দাবি করে প্রতিবাদের অন্য সংগঠক লিটন নন্দী বেনারকে বলেন, “আমরা আসলে মানুষের অধিকার এবং বাক্‌স্বাধীনতা বিরোধী এই আইনটিরই বিলুপ্তি চাচ্ছি।”

জোন ভিত্তিক লকডাউন

করোনার প্রকোপ অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন অঞ্চলকে লাল, হলুদ এবং সবুজ জোন হিসেবে চিহ্নিত করে পরিস্থিতি মোকাবিলার নতুন কৌশল নিয়েছে সরকার। পাশাপাশি লাল এবং হলুদ জোনে বসবাসকারী নাগরিকদের জন্য ৩০ জুন পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক নির্দেশনায় বলা হয়, “সবুজ জোনে সরকারি/আধা-সরকারি/স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি অফিসসূহ নিজ ব্যবস্থাপনায় সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে।”

ঢাকার দুই সিটির ৪৫টি এবং চট্টগ্রাম সিটির ১১ এলাকাকে লাল জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গঠিত কেন্দ্রীয় টেকনিক্যাল কমিটি।

এসব এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তারা সিদ্ধান্ত নেবেন বলে বেনারকে জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার ডেপুটি পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ও টেকনিক্যাল কমিটির সদস্যসচিব ডা. জহিরুল করিম।

দুই মাসের বেশি সময় সারা দেশে লকডাউন জারি রাখার পর ৩১ মে থেকে বেশির ভাগ বিধিনিষেধ তুলে নেয় সরকার। এরপর প্রতিদিন সংক্রমণ বাড়তে থাকায় টেকনিক্যাল কমিটি ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলকে কভিড ১৯ এর প্রকোপ অনুযায়ী জোন হিসেবে চিহ্নিত করে পরিস্থিতি মোকাবিলার কৌশল নেয়।

কৌশল অনুযায়ী ঢাকা ও চট্টগ্রামের এক লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত যে কোনো অঞ্চলে বিগত ১৪ দিনে ৬০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলে সেই এলাকা রেড জোন হিসেবে পরিগণিত হবে। বাকি জেলাগুলোতে ১৪ দিনের ভেতরে এক লাখ জনসংখ্যার মধ্যে ১০ জন করোনা আক্রান্ত পাওয়া গেলে তাকে রেড জোন ঘোষণা করা হবে।

এদিকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে বলে বেনারকে জানান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের।

করোনা পরিস্থিতির কারণে ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছুটি চলছে। কয়েক দফা বাড়িয়ে ১৫ জুন পর্যন্ত নির্ধারিত ছিল।

পুর্ণাঙ্গ আকারে দেখুন